Alienware এর আপগ্রেডেবল ল্যাপটপ–আপগ্রেড করা যাবে জিপিইউও

Please log in or register to like posts.
Post

ডেল তাদের CES ২০১৯ এ বেশ কয়েকটি নতুন ল্যাপটপ প্রদর্শন করেছে। তবে তাদের মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষনীয় ল্যাপটপটি হচ্ছে এলিয়েনওয়্যার Area-51m।  

ডেল এর নতুন এলিয়েনওয়্যার সিরিজের Area-51m ল্যাপটপটি আপগ্রেডেবিলিটি এর দুনিয়ায় সম্পূর্ণ নতুন এক দিক খুলে দিয়েছে। সাধারণত ল্যাপটপ এর চেয়ে ডেস্কটপ সবসময়ই যে দিক দিয়ে এগিয়ে থাকে তা হলো আপগ্রেডেবিলিটির সুযোগ। এলিয়েনওয়্যার তাদের এই Area-51m দিয়ে ডেস্কটপ এর সাথে সেই তফাৎ অনেকটাই ঘুচিয়ে এনেছে।

1

এলিয়েনওয়্যার Area-51m

অতীতে যে ল্যাপটপ এ কম্পোনেন্ট আপগ্রেড করা যেত না তা কিন্তু নয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমরা যত ল্যাপটপই দেখেছি সবগুলোর ই শুধুমাত্র র‍্যাম এবং স্টোরেজ আপগ্রেড করার সুযোগ থাকতো। হাতে গোনা কয়েকটি ল্যাপটপে হয়ত প্রসেসর আপগ্রেড করা যেত ডেস্কটপ প্রসেসর দিয়ে, কিন্তু তাও অনেকসময় আপগ্রেড করা সাধারণ ইউজারদের পক্ষে সম্ভব হয়ে ওঠে না। এলিয়েনওয়্যার Area-51m ল্যাপটপটি তৈরীই করা হয়েছে আপগ্রেডেবিলিটি এর কথা মাথায় রেখে। আর এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় পদক্ষেপটি হচ্ছে এতে ইউজাররা পাচ্ছেন গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট(GPU) আপগ্রেড করার সুযোগ। গেমারদের উদ্যেশ্যে যেসব গেমিং ল্যাপটপ বাজারজাত করা হয় তার সবচেয়ে বড় দূর্বলতাই ছিল এই দিকটি, কারণ নতুন জেনারেশন এর প্রসেসর বা অধিক র‍্যাম যতটা না গেমিং পারফরমেন্স এ প্রভাব ফেলে, নতুন জেনারেশনের জিপিইউ তার চেয়ে অনেক বেশিই প্রভাব ফেলে। তাই যদি জিপিইউ আপগ্রেড করা না গেলে আজকের যে ল্যাপটপ টি টপ এন্ড বলে ধরা হয় কয়েক বছরের মধ্যেই তা অন্যান্য নতুন ল্যাপটপের পিছনে পড়ে যায়। এর আগে এনভিডিয়া তাদের MXM সিরিজের কার্ড ব্যবহার করে ইউজারদের জিপিইউ আপগ্রেড করার সুযোগ দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিলো। কিন্তু সেই উদ্যোগ তেমন একটা ফলপ্রসূ হয় নি। এলিয়েনওয়্যার এর এই উদ্যোগ কতটুকু ফলপ্রসূ হয় তাই এখন দেখার ব্যাপার। ডেল এর এই উদ্যোগ এ যে সুবিধা রয়েছে তা হচ্ছে তারা নিজেরাই এই নতুন জিপিইউ মডিউলটি বানাবে এবং বাজারজাত করবে। এ কারণে ইউজার রা সরাসরি তাদের ল্যাপটপ ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি থেকে তাদের জিপিইউ আপগ্রেড করতে পারবে, তাদের আর অন্য কোনো কম্পানির জিপিইউ মডিউলের জন্য অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই। এছাড়াও যেহেতু ডেল তাদের নিজস্ব পিসিবি ডিজাইনে শুধু জিপিইউ চিপ যোগ করছে, এ কারণে ইউজাররা শুধুমাত্র এনভিডিয়া জিপিইউই নয়, যেকোন জিপিইউ প্রোভাইডারের চিপ ব্যবহার করতে পারবে। এ কারণে হয়তো ভবিষ্যতে ইউজার ইচ্ছামত এএমডি, এনভিডিয়া বা ইন্টেল (আপকামিং) জিপিইউ ব্যবহার করতে পারবে।
2

Toggle navigation কম্পিউটার, টেক নিউজ Alienware এর আপগ্রেডেবল ল্যাপটপ – আপগ্রেড করা যাবে জিপিইউও! By Sirajis Salekin Sajon Jan 11, 2019 0 Comments ডেল তাদের CES ২০১৯ এ বেশ কয়েকটি নতুন ল্যাপটপ প্রদর্শন করেছে। তবে তাদের মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষনীয় ল্যাপটপটি হচ্ছে এলিয়েনওয়্যার Area-51m। ডেল এর নতুন এলিয়েনওয়্যার সিরিজের Area-51m ল্যাপটপটি আপগ্রেডেবিলিটি এর দুনিয়ায় সম্পূর্ণ নতুন এক দিক খুলে দিয়েছে। সাধারণত ল্যাপটপ এর চেয়ে ডেস্কটপ সবসময়ই যে দিক দিয়ে এগিয়ে থাকে তা হলো আপগ্রেডেবিলিটির সুযোগ। এলিয়েনওয়্যার তাদের এই Area-51m দিয়ে ডেস্কটপ এর সাথে সেই তফাৎ অনেকটাই ঘুচিয়ে এনেছে। এলিয়েনওয়্যার Area-51m অতীতে যে ল্যাপটপ এ কম্পোনেন্ট আপগ্রেড করা যেত না তা কিন্তু নয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমরা যত ল্যাপটপই দেখেছি সবগুলোর ই শুধুমাত্র র‍্যাম এবং স্টোরেজ আপগ্রেড করার সুযোগ থাকতো। হাতে গোনা কয়েকটি ল্যাপটপে হয়ত প্রসেসর আপগ্রেড করা যেত ডেস্কটপ প্রসেসর দিয়ে, কিন্তু তাও অনেকসময় আপগ্রেড করা সাধারণ ইউজারদের পক্ষে সম্ভব হয়ে ওঠে না। এলিয়েনওয়্যার Area-51m ল্যাপটপটি তৈরীই করা হয়েছে আপগ্রেডেবিলিটি এর কথা মাথায় রেখে। আর এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় পদক্ষেপটি হচ্ছে এতে ইউজাররা পাচ্ছেন গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট(GPU) আপগ্রেড করার সুযোগ। গেমারদের উদ্যেশ্যে যেসব গেমিং ল্যাপটপ বাজারজাত করা হয় তার সবচেয়ে বড় দূর্বলতাই ছিল এই দিকটি, কারণ নতুন জেনারেশন এর প্রসেসর বা অধিক র‍্যাম যতটা না গেমিং পারফরমেন্স এ প্রভাব ফেলে, নতুন জেনারেশনের জিপিইউ তার চেয়ে অনেক বেশিই প্রভাব ফেলে। তাই যদি জিপিইউ আপগ্রেড করা না গেলে আজকের যে ল্যাপটপ টি টপ এন্ড বলে ধরা হয় কয়েক বছরের মধ্যেই তা অন্যান্য নতুন ল্যাপটপের পিছনে পড়ে যায়। এর আগে এনভিডিয়া তাদের MXM সিরিজের কার্ড ব্যবহার করে ইউজারদের জিপিইউ আপগ্রেড করার সুযোগ দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিলো। কিন্তু সেই উদ্যোগ তেমন একটা ফলপ্রসূ হয় নি। এলিয়েনওয়্যার এর এই উদ্যোগ কতটুকু ফলপ্রসূ হয় তাই এখন দেখার ব্যাপার। ডেল এর এই উদ্যোগ এ যে সুবিধা রয়েছে তা হচ্ছে তারা নিজেরাই এই নতুন জিপিইউ মডিউলটি বানাবে এবং বাজারজাত করবে। এ কারণে ইউজার রা সরাসরি তাদের ল্যাপটপ ম্যানুফ্যাকচারার কোম্পানি থেকে তাদের জিপিইউ আপগ্রেড করতে পারবে, তাদের আর অন্য কোনো কম্পানির জিপিইউ মডিউলের জন্য অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই। এছাড়াও যেহেতু ডেল তাদের নিজস্ব পিসিবি ডিজাইনে শুধু জিপিইউ চিপ যোগ করছে, এ কারণে ইউজাররা শুধুমাত্র এনভিডিয়া জিপিইউই নয়, যেকোন জিপিইউ প্রোভাইডারের চিপ ব্যবহার করতে পারবে। এ কারণে হয়তো ভবিষ্যতে ইউজার ইচ্ছামত এএমডি, এনভিডিয়া বা ইন্টেল (আপকামিং) জিপিইউ ব্যবহার করতে পারবে। এলিয়েনওয়্যার সিরিজের Area-51m ল্যাপটপটি তে ৪(চার) টি র‍্যাম স্লট রয়েছে যাতে আপনি বর্তমানে সর্বোচ্চ ৬৪ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও স্টোরেজ হিসেবে আপনি দুটি M.2 স্লট আর একটি মেকানিক্যাল ২.৫” হার্ডড্রাইভ ব্যবহার করতে পারবেন। বর্তমানে ল্যাপটপ টি সর্বোচ্চ ইন্টেল এর i9-9900k এবং এনভিডিয়ার আরটিএক্স ২০৮০ দিয়ে কনফিগার করা যাবে। ল্যাপটপটি জানুয়ারির ২৯ তারিখ অফিসিয়ালি রিলিজ পাবে। বেজ কনফিগারেশনের দাম হবে ২৫৪৯ ইউ এস ডলার।

Reactions

0
0
0
0
0
0
Already reacted for this post.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *